‘আপনারা কি চান যে আমি আরো ৫-৬ বছর খেলি, নাকি ১-২ বছর?’

0
3

ক্রীড়াঙ্গন ডেস্ক:
সাকিবের ছুটি চাওয়া আর বোর্ডের তা মঞ্জুর করা নিয়ে গত দুই দিন থেকেই চলছে আলোচনা-সমালোচনা। শুধু দেশের ভেতরেই না, ক্রিকেট বিশ্বে এটা নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়। গতকাল মঙ্গলবার সাকিব বনানীর নিজ বাসায় সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন অনেক কিছুই। বিসিবির কাছে পাঠানো আবেদন পত্রে স্পষ্ট করেই জানিয়েছেন, ক্লান্তির কারণেই আপাতত লংগার ভার্সনে খেলতে চান না তিনি।
সাকিব জানান, ‘আরও ভালো খেলার চিন্তা করেই আমি ৬ মাসের জন্য টেস্টে থেকে ছুটি চেয়েছিলাম। তাতে আমি আরও ৫-৬ বছর বেশি সার্ভিস দিতে পারবো। খেলার প্রতি ভালোবাসা থাকলে বাড়তি কিছু করার আগ্রহ থাকে। ওই আগ্রহটা যেন পাই সেটা ভেবেই ছুটি চেয়েছিলাম। এই বিশ্রামটা আমার জরুরি। আমি চাইলেই খেলতে পারি। তাতে ম্যাচ ফি পাবো, পারিশ্রমিক পাবো, সবই পাবো। কিন্তু, কথা হচ্ছে, আপনারা কি চান যে আমি আরো ৫-৬ বছর খেলি নাকি ১-২ বছর? নির্ভর করছে সেটার ওপর।’
আপাতত দুই টেস্টের হলেও এটাকে বড় বিরতিই মনে করছেন সাকিব। সাকিবের কাছে জানতে চাওয়া হয়, আপনার এভাবে বিশ্রাম চাওয়ার বিষয়টি বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে একটা সংস্কৃতিতে পরিণত হবে কি না? জবাবে সাকিব বলেন, ‘না আমি এটা মনে করি না। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০-১১ বছর হয়ে গেল। একটা ব্রেক তো নিতেই পারি, এটা আমি ডিজার্ভ করি।’
অবসরের আগ মুহূর্ত পর্যন্ত টেস্ট খেলতে চান সাকিব। এ প্রসঙ্গে তিনি জানান, ‘সীমিত ওভারের খেলা একদিনের হয় কিংবা তিন ঘণ্টার হয়। টেস্ট ম্যাচ হয় পাঁচদিনের। সাথে অনুশীলন তো থাকেই। সত্যি বলতে কি মানসিকভাবে ফুরফুরে না থাকলে টেস্ট খেলার কোনো মানেই হয় না। দেখুন, টেস্টে চার ইনিংসে আমাকে ব্যাট ও বল হাতে কিছু দায়িত্ব পালন করতে হয়। তাই সেটা ঠিকভাবে করতে হলে বিশ্রামটা জরুরি ছিল। আমার ইচ্ছা সবার শেষে টেস্ট ক্রিকেট থেকে অবসর নেব। তার আগে টি-টোয়েন্টি এবং ওয়ানডে থেকে অবসর নেব। কিন্তু আমার মনের কথা সবসময় সবাইকে বলার দরকার আছে বলে মনে হয় না। আমার ভেতরে কি আছে, আমি জানি।’

সমর্থকদের জন্য সাকিবের খোলা চিঠি

ক্লান্তিজনিত অবসাদ আর নিজেকে উজ্জ্বীবিত করতেই আপাতত টেস্ট খেলতে চাননি সদ্যই ৫০তম টেস্টের মাইলফলক পেরুনো সাকিব। সাকিব তার ফেসবুক পেজে ভক্ত-সমর্থকদের জন্য লিখেছেন-

প্রিয় সমর্থক,
আপনারা জানেন আমি গত কয়েক বছর ধরে দেশের গৌরবের জন্য বিরতিহীন ক্রিকেট খেলে যাচ্ছি, যার কারণে আমার অনেক শারীরিক ও মানসিক ধকল যাচ্ছে। এই ব্যাপারটি মাথায় রেখে আমি ঠিক করেছিলাম আসন্ন দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট সিরিজের দুটি টেস্টে সামিয়িক বিরতি নেওয়ার এবং বিসিবি বিষয়টি তাদের বিজ্ঞ বিবেচনায় নিয়ে আমাকে খেলা থেকে বিরতি নেওয়ার অনুমতি দিয়েছে।
ফলে, আমি মনে করি সাময়িক এই বিরতি আমাকে আগামী খেলাগুলোর জন্য আরো শক্তি ও মনোবল যোগাবে এবং আমাকে ও পুরো দলকে সাহায্য করবে আগামীতে আমাদের সাফল্যের চূড়ায় নিয়ে যেতে।
আমি সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই তাদের সীমাহীন ভালোবাসা ও অনুপ্রেরণার দেওয়ার জন্য। আসুন সবাই আমাদের টাইগারদের সাফল্য কামনা করি সামনের দক্ষিণ আফ্রিকার টেস্ট সিরিজের জন্য।
সাকিবের ফেসবুক পেজ থেকে নেওয়াএর ফলে দলের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে ছাড়াই দক্ষিণ আফ্রিকায় টেস্ট সিরিজ শুরু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। টেস্ট থেকে ছয় মাসের বিশ্রাম চাওয়া সাকিবকে দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই টেস্টে বিশ্রাম দেওয়া হয়। টানা খেলার ক্লান্তি ঘোচাতেই ছয় মাসের ছুটি চেয়েছিলেন সাকিব। তবে, চাইলেই সাকিব দ্বিতীয় টেস্টে খেলতে পারবেন।
চলতি বছর টেস্টে ব্যাটে-বলে সেরা ফর্মে আছেন। এরমধ্যেই ৭ টেস্টে ব্যাট হাতে করেছেন ৬৬৫ রান, যা এক পঞ্জিকাবর্ষে তার সবচেয়ে বেশি রানের রেকর্ড। উইকেট নিয়েছেন ২৯টি। ২০০৮ সালে দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের দুটিতেই ইনিংস ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ। তবে, ব্যক্তিগত পারফরম্যান্সে ঝলমলে ছিলেন সাকিব। প্রথম ম্যাচে পাঁচ উইকেট নেওয়ার পর দ্বিতীয় ম্যাচে নিয়েছিলেন ছয়টি উইকেট।
ব্যাটিং কিংবা বোলিং দুই দিক থেকেই বাংলাদেশের মূল ভরসা সাকিব। ২০০৭ সালে অভিষেকের পর ৫১টি টেস্ট খেলেছেন সাকিব। তাকে ছাড়া বাংলাদেশ মাঠে নেমেছে মাত্র সাতবার। যে ৫১ টেস্টে মাঠে নেমেছেন ব্যাটে কিংবা বলে তাকে ছাড়াতে পারেননি কেউ। যে ৫১ টেস্ট খেলেছেন সাকিব, তাতে বাংলাদেশের বোলাররা উইকেট পেয়েছেন ৬৪৩টি, সাকিব একাই নিয়েছেন এর ১৮৮টি।

সাকিবের রংপুর যাত্রা

দিনব্যাপী ক্রিকেট কর্মশালা ও যুবসমাবেশে অংশ নিতে বুধবার (১৩ সেপ্টেম্বর) রংপুরে যাচ্ছেন বিশ্বের এক নম্বর অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। এদিন সকাল ১০টায় বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় (বেরোবি) ও দুপুর ২টায় রংপুর ক্রিকেট গার্ডেন মাঠে তিনি তরুণদের উদ্ধুদ্ধ করবেন।
তরুণদের মাদকমুক্ত রংপুর গঠনে উদ্ধুদ্ধকরণ, খেলাধুলা ও শরীরচর্চার প্রতি আকৃষ্ট করার জন্য সাকিব আল হাসান সকাল দশটা থেকে বেরোবির খেলার মাঠে উপস্থিত থেকে নিজের ক্রিকেটজ্ঞান ও উদ্ধুদ্ধকরণ বক্তব্য রাখবেন।
এরপর দুপুর দুইটার দিকে তিনি রংপুরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত ক্রিকেট গার্ডেন মাঠে একই রকম কর্মশালা ও যুবসমাবেশে অংশ নেবেন। ক্রিকেট আইকন সাকিব আল হাসানের আগমন উপলক্ষে ক্রিকেটপ্রেমী বেরোবির শিক্ষার্থীসহ রংপুরবাসীর মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

LEAVE A REPLY