শঙ্কার মেঘ বাস্তবেই নেমে এলো ইতালির আকাশে !

0
3

ক্রীড়াঙ্গন ডেস্ক:

যে শঙ্কার মেঘ ক’দিন ধরে উড়ছিল ইতালির আকাশে, সেটাই বাস্তবে নেমে এলো, রূপ নিলো যেন চোখের জলে। রাশিয়া বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়লো ইউরোপের পরাশক্তি দলটি। সুইডেনের সঙ্গে প্লে-অফের ফিরতি লেগের ম্যাচেও (গোলশূন্য ড্র) জয় না পাওয়ায় ওয়ার্ল্ডকাপের চূড়ান্ত পর্বের আগেই ঝরে পড়তে হলো বুফন-কিয়েল্লিনি-বোনুচ্চিদের।

ব্রাজিলের পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বিশ্বকাপজয়ী এই দল প্রায় ৬০ বছর পর বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনের সবচেয়ে জমজমাট আসরে খেলার সুযোগ হারালো এবার। সবশেষ ২০০৬ সালেই দলটি ‘হট ফেভারিট’ না হয়েও নান্দনিক ফুটবল খেলে বিশ্বকে তাক লাগিয়ে শিরোপা ঘরে তুলেছিল। অথচ সেই দলটিই এবার টোটাল ফুটবলের জনক নেদারল্যান্ডসের মতো দর্শক হয়ে থাকবে রাশিয়া বিশ্বকাপের।

বাছাইপর্বে ব্যর্থতায় পয়েন্ট তালিকার সমীকরণে বিশ্বকাপে যাওয়ার জন্য প্লে-অফ খেলতে হয় ইতালিকে। তাদের প্রতিপক্ষ ছিল মাঝারিমানের দল সুইডেন। কিন্তু ১০ নভেম্বর স্টকহোমে প্রথম লেগে খেলতে গিয়ে ১-০ গোলে হেরে বসে ফ্যাবিও ক্যানাভারো-আন্দ্রে পিরলোর উত্তরসূরীরা।

এই অবস্থায় নিজেদের মাঠে ফিরতি লেগে ইতালির সামনে সমীকরণ দাঁড়ায়, বিশ্বকাপে যেতে হলে ২-০ গোলে জিততে হবে। কিন্তু সোমবার (১৩ নভেম্বর) রাতে সফরের গোলটিও শোধ করতে পারলেন না পিয়েরো ভেনচুরার শিষ্যরা। প্রথমার্ধ কী, শেষার্ধ, পুরো ম্যাচেই আক্রমণ শানিয়েও গোলের দেখা পেলো না ইতালি।

সুইডিশদের রক্ষণ দেওয়াল বারবার ফিরিয়ে দিয়েছে ফ্লোরেনজি-ইমোবিল-গাবিয়াদিনিদের আক্রমণ। গোলবার লক্ষ্য করে মোট ৬টি শট নিলেও জালের দেখা পায়নি একটিও। পুরো ম্যাচে ৭৭ ভাগ বল দখল রেখেও ম্যাচ শেষে কাঁদতে হয়েছে বুফন-কিয়েল্লিনি-বোনুচ্চিদেদের।

এর আগে ১৯৫৮ সালে বিশ্বকাপে জায়গা করতে ব্যর্থ হয় নান্দনিক ফুটবলের দল ইতালি। এতোগুলো বছর পর এমন ব্যর্থতার ভার মাথায় নিয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে সরে দাঁড়ালেন বিশ্বের অন্যতম সেরা গোলরক্ষক এবং ইতালির অধিনায়ক জিয়ানলুইজি বুফন।

এদিকে, প্রথম ম্যাচ জিতে যাওয়ার ফিরতি লেগের ম্যাচে ইতালিকে ঠেকিয়ে দেওয়ায় প্রায় এক যুগ পর বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পেয়ে গেল সুইডেন। সবশেষ ২০০৬ সালে জার্মানি বিশ্বকাপে খেলেছিল জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচের দেশ।

LEAVE A REPLY